বিসুখ

সুখে থাকার জন্য সুখস্বপ্ন দেখেছি, সুখের মুখ দেখার জন্য সুখাম্বেষণে আমি সুখের হাটে গিয়েছি, সুখশয্যায় সুখশয়ন করেছি, সুখাসনে সুখাসীন হয়েছি, সুখানুভূতির জন্য সুখানুভব করেছি, সুখাশায় সুখস্পর্শ করে অসুখী হয়েছি। অবশেষে বিসুখে সুখের সাথে আড়ি দিয়ে জেনেছি, শুধুমাত্র সচেষ্ট এবং সতর্করা সুখৈশ্বর্য উপভোগ করে। সুখের জন্য অধৈর্য হলে মানুষ কাতর এবং কাঙাল হয়। সুখশান্তি এবং স্বস্তির সাথে দূরত্ব বজায় রেখে আমরা সুখিত হতে চাই। সুখ আমাদের চারপাশে ভেসে বেড়ায়। আনন্দের জন্যেই আমরা নিরানন্দ হই। লোভ এবং হিংসার প্রভাবে আমরা আত্মিকভাবে অসুস্থ হই। একই দেহে ডিম্বাণু ও শুক্রাণু উৎপাদন করে এমন প্রাণী আছে, তদ্রূপ সুখ এবং দুঃখ আমাদের সত্তার সাথে সম্পৃক্ত।

© Mohammed Abdulhaque

উপন্যাস সমগ্র

স্বার্থান্ধ

মৃত্যুকে কেউ হত্যা করতে পারেনি এবং পারবেও না। শক্তিশালী এবং সম্পদশালীরা অমর হতে পারে নি। বড়াই এবং বাড়াবাড়ির কারণ, অহংকার, পরহিংসা এবং লোভে আমরা অন্ধ। অন্ধরা শক্তিশালী এবং সম্পদশালী হলেও অন্যের মুখাপেক্ষী। এই সত্য আমরা বুঝতে চাই না, যদ্দরুন নিজের পায়ে কুড়াল মারি। কেমনে অন্যকে হেয় প্রতিপন্ন করা যায়, কেমনে অন্যের সম্পদ আত্মসাৎ করা যায়, কেমনে অন্যদেশকে নাশ করা যায় এসব কলাকৌশল শিখার জন্য আমরা বিশ্বের সর্বোচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করি। কিন্তু কেমনে অন্যের সাথে জীবনোপকরণ ভাগ করা যায় তা আমরা জানতে এবং করতে নারাজ। প্রদাদার সাথে দেখা হয়নি এবং প্রনাতির সাথে দেখা হবে না জেনেও সম্পদ সঞ্চয়ের জন্য মরিয়া হয়ে নির্বোধরা মরে। যারা অন্যকে ঘৃণা করে অথবা যারা অন্যের ক্ষতি করে ওরা ঘৃণ্য এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘৃণায় ঘৃণ্য হয়ে আমরা জঘণ্য কাজ করি। যে যত বেশি ঘৃণা করে সে তত ঘৃণ্য এবং জঘণ্য কাজ করে। আমার কথা বিশ্বাস না হলে বাস্তবে পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন। মনে রাখতে হবে, মৃত্যুর পর শক্তিশালীর দেহ নিথর হয় এবং সম্পদ কারো সাথে যায় না।

© Mohammed Abdulhaque

উপন্যাস সমগ্র

Try your best

Another day begins at dawn and happiness is preserved if one is alert. You have to try your best to stay healthy just like you have to live till death.

রাত ভোর হলে আরেকটা দিনের শুরু হয় এবং সর্তক থাকলে সুখ সংরক্ষিত হয়। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত যেমন বাঁচতে হয় তদ্রূপ সুস্থ থাকার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করতে হয়।

© Mohammed Abdulhaque

উপন্যাস সমগ্র

মানসিক হাহাকার

প্রেমানন্দ এবং প্রীতিকর আকর্ষণের কোনো মূল্য নেই, মনোযোগ আকর্ষীরা চারপাশে। নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকার দরুন আমাদের অজান্তে প্রাণান্তকর প্রান্তর সমৃদ্ধ হচ্ছে। বুক ভরে শ্বাস টানতে কষ্ট হয়, পানি পানে তুষ্ট হতে চাইলে তেষ্টায় অতিষ্ট হতে হয়। জীবনের সময়সীমা ফুরাচ্ছে, কারো কাছে এক বছর এক হাজার বছর মনে হচ্ছে। আহাম্মকরা বিশ্বাস করে একশো বাছর বাঁচতে পারলে অমরত্ব পাবে। চির-সবুজ এবং চির-সুন্দর পৃথীবি দিনানুদিন ধূসর এবং কুৎসিত হচ্ছে। ঘরের ভিতর গুটিপোকার বাসা, তেলের কুপিতে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে। হভাতে জাতিকে হাঘরে করার জন্য গাওয়া ঘি ঢালচ্ছে সাদরে। দিনানুদিন দুর্ভোগ এবং দুর্নীতি বিস্তৃত হচ্ছে। মানসিক হাহাকারে কোনও ধ্বনি নেই। আয়ের উৎস সীমিত কিন্তু নিত্য প্রয়োজনীয় বস্তু ব্যয়বহুল হচ্ছে। অর্থের অভাবে জীবন অনর্থক হওয়ার আগে আমাদেরকে কর্মিষ্ঠ হতে হবে। পৃথিবীকে সবুজ করার ব্রতে ব্রতী হলে আদ্যাশক্তি আমাদেরকে সমর্থন করবে।

© Mohammed Abdulhaque

উপন্যাস সমগ্র

বিরহানল

বেকারদের মগজ হলো শয়তানের বিশ্রামস্থল। বেকাররা প্রেম প্রেম জপে জাপক হতে চায়। মোহমায়ায় বিমোহিত হয়ে ভুলে যায়, ভুখ লাগলে যে খাবার খেতে হয়। যারা রাত জেগে বিরহানলে জ্বলে আর চিল্লায়, ওরা জানে না ভালোবাসি ভালোবাসি জপে বিরহীর পেট ভরে না। বিয়ে করতে হলে টাকা লাগে। ভালোবাসাবাসির জন্যও টাকা লাগে। বিধায় কাজকে ভালোবাসলে অন্তত রাতে আরামে ঘুমাতে পারবে। খুশিকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যায় না, যেমন অন্ধকারে ছায়া দেখা যায় না। যৌবনকালে সকল জীব সঙ্গমের জন্য হন্যে হয় এবং এটি স্বাভাবিক। ভালোবাসি নামক নাটকে বাড়াবাড়ি করে ফাঁড়ায় পড়ে মরার নাম সীমালঙ্ঘন। সীমালঙ্ঘনকারীকে সকলে ঘৃণা করে। বিরহী এবং বিরহিণীর সংসারে ক্রোধাগ্নি দাউ দাউ করে, যা হওয়ার নয় তা হওয়াতে চাইলে বিপত্তি বাড়ে।

ধর্মান্ধ এবং স্বার্থান্ধের সাথে দূরত্ব বজায় রাখতে পারলে সহজে আত্মোন্নতি হয়। কিন্তু, সমস্যা হলো এদেরকে চিনতে যথেষ্ট সময় লাগে। চা পান করে চিনি চিবালে যা হয় আরকি!

© Mohammed Abdulhaque

উপন্যাস সমগ্র