পঞ্চাশ বৎসর পর

পঞ্চাশ_বৎসর_পর

জয়ের আনন্দে নিরানন্দরা আনন্দিত হয়নি এবং হবেও না। স্বাধীন দেশে স্বাধীনভাবে বাঁচার জন্য আমাদেরকে বিবেকবান হতে হবে। ন্যায়নীতি মানতে হবে। সত্য এবং অসত্যের পার্থক্য বুঝতে হবে। আমাদের জন্ম হয়েছে, যখন তখন মৃত্যু হবে। অন্যায়ভাবে অন্যের অধিকার নষ্ট না করে সততার সাথে কাজ করলে সার্বিক উন্নতি হবে। অন্যদেশে যেয়ে মেথরি না করে দেশের উন্নিতর জন্য মানান্দে কাজ করতে হবে। বর্তমানে শুধু অবনতিই হচ্ছে এবং হাভাতের সংখ্যা বাড়তেই আছে। শুধু অবনতিই হচ্ছে লেখার কারণ হলো, পঞ্চাশ বৎসর পরেও আমরা ভাং আর সিদ্ধি সেবে সিদ্ধাই হতে চাই, বাস্তবিক হতে চাই না। দুঃখে জরজর জরঠকে জরজেট দিলে দুঃখ দূর হয় না। নুনে জরজর খাবারে পেট ভরে না। নুন দিয়ে হলেও এক থাল পান্তা খাওয়া যায়। জরাজীর্ণ জরতীরা বৃদ্ধাশ্রমের রাস্তা চিনে না। বেকার এবং বৃদ্ধদের জন্য ভাতার ব্যবস্তা করতে হবে। দায়িত্ব কর্তব্য আদায় করে সন্তানকে দায়িত্বশীল করতে হবে। দেশ এবং ভাষাকে ভালোবাসতে হবে। পরিবেশ এবং প্রতিবেশীকে ভালোবাসতে হবে। শিশুদের নিরাপত্তা এবং কিশোরদের সুশিক্ষার সুবন্দোবস্ত করতে হবে। অধিকার সম্বন্ধে সকলকে সতর্ক হতে হবে নইলে আজীবন পতনোম্মুখ জাতি থাকব।

© Mohammed Abdulhaque

উপন্যাস সমগ্র